লাঞ্চ ব্রেকের জন্য বেঁচে যান ৪০ শ্রমিক

0
55

মুম্বাইয়ের জনবহুল এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনে প্লেন বিধ্বস্ত হয়ে পাইলটসহ নিহত হয়েছেন পাঁচজন। প্লেনটি বিধ্বস্ত হওয়ার মাত্র কয়েক মিনিট আগে লাঞ্চ ব্রেকে চলে গিয়েছিলেন ওই নির্মাণাধীন ভবনের শ্রমিকরা। ফলে অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান সেখানে কর্মরত প্রায় ৪০ জন শ্রমিক।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) স্থানীয় সময় বেলা ১টা ১১ মিনিটে মুম্বাইয়ের জনবহুল ঘাটকোপার এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনে বিধ্বস্ত হয় কিং এয়ার সি-৯০ নামের প্লেনটি। এতে প্লেনের পাইলট ও একজন পথচারীসহ পাঁচজন নিহত হন। আহত হন ভবনের তিনজন নির্মাণশ্রমিক। তাদের আঘাত তেমন গুরুতর নয়।

মুখমণ্ডলে আঘাত পাওয়া একজন শ্রমিক নরিশ নিশাদ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, দুপুরের খাওয়ার সময় সেখানে উপস্থিত না থাকায় আমরা অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গিয়েছি। নয়তো আমাদেরও একই ভাগ্য বরণ করতে হতো। আমি জানিনা প্লেনটি কোন দিকে থেকে এসেছিল। আমি শুধু প্লেনের কিছু জ্বলন্ত অংশ আমার দিকে ধেয়ে আসতে দেখেছি এবং বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছি।

আরেকজন নির্মাণশ্রমিক বলেন, প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ার সময় হালকা বৃষ্টি হচ্ছিল। তাই আমরা লাঞ্চ ব্রেকের সময় অন্য একটি নির্মাণাধীন ভবনে আশ্রয় নিয়েছিলাম। অথচ আমরা সবসময় সেখানে বসেই দুপুরের খাবার খেতাম যেখানে প্লেনটি বিধ্বস্ত হয়।

দুর্ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক পুলিশ সদস্য বলেন, ভাগ্য ভালই বলতে হবে। কারণ প্লেনটি নির্মাণাধীন ভবনের বসলে ওই এলাকার কোনো বহুতল ভবনেও বিধ্বস্ত হতে পারত। তাছাড়া ওই ভবনের নির্মাণ শ্রমিকরা লাঞ্চ ব্রেকে চলে গিয়েছিল। নয়তো হতাহতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি হতো।

জানা যায়, প্লেনটি প্রথমে উত্তর প্রদেশের সরকারি মালিকানায় ছিল। পরে একটি প্রাইভেট কোম্পানি ইউওয়াই এভিয়েশনের কাছে ১২ সিটের প্লেনটি বিক্রি করা হয়।

এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, একটি টেস্ট ফ্লাইটের অংশ হিসেবে জুহু এয়ারপোর্ট থেকে প্লেনটি টেকঅফ করে। টেকঅফের ৪ নটিক্যাল মাইল দূরত্বে থাকা অবস্থায় তা নিয়ন্ত্রণ হারায়।

মন্তব্য করুনঃ

আপনার মন্তব্যটি করুন
দয়া করে এখানে আপনার নামটি প্রদান করুন